ভারতীয় সংগীত শিল্পী কে কে আর নেই

ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী কৃষ্ণকুমার কুন্দন ওরফে কেকে মারা গেছেন। মঙ্গলবার (৩১) দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে কলকাতার একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫৪ বছর।


ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে, কলকাতায় গানের অনুষ্ঠান ছিলো কেকের। মঞ্চে গান গাওয়ার পর হঠাৎ অসুস্থ বোধ করেন। তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যাওয়া হয় শহরের প্রথম সারির একটি বেসরকারি হাসপাতালে। সেখানেই রাত সাড়ে ৯টায় চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


চিকিৎসকদের প্রাথমিক ধারণা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে তার। আকস্মিক মৃত্যুর কারণ জানতে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো দেয়া হয়েছে। শিল্পীর মৃত্যুর খবর ফেসবুকে প্রথম জানান অমিত কুমারের স্ত্রী রিমা গঙ্গোপাধ্যায়। সঙ্গে সঙ্গে শোকের ছায়া নেমে আসে অনুরাগী মহলে। সুরের শহর কলকাতা শিল্পীর গানের শেষ সাক্ষী হয়ে রইলো।


একটি সূত্র জানিয়েছে, অনুষ্ঠানের পর কলকাতার পাঁচতারা হোটেলে গিয়েছিলেন তিনি। সেই সময় অনুরাগীরা তাকে ছবি তোলার অনুরোধ জানান। তখনই অসুস্থ বোধ করায় এ দিন ভক্তদের নিরাশ করেন তিনি। অসুস্থতা বাড়তেই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।


শিল্পীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ইতিমধ্যেই হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন সুরকার জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। অনু্ষ্ঠানের আয়োজক তোচন ঘোষ কেকে-কে কলকাতায় নিয়ে আসেন। বুধবার তার আরো একটি শো করার কথা ছিলো।


মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে পশ্চিমবঙ্গের বিদ্যুৎ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস বলেন, গায়ক অনুপম রায় আমাকে ফোন করে বলেছিলেন যে, তিনি হাসপাতাল থেকে খারাপ কিছু শুনতে পাচ্ছেন। এরপর হাসপাতালে যোগাযোগ করি। তারা বলেছে, তাকে মৃত অবস্থায় আনা হচ্ছে। তারপর হাসপাতালে ছুটে যাই।


গত তিন দশকে ভারতীয় সংগীত প্রেমীদের বহু হিট গান উপহার দিয়েছেন কে কে। ১৯৯৯ সালে কেকে তার প্রথম অ্যালবাম পাল প্রকাশ করেন। তিনি দিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।