ব্যালন ডি অর জয়ের দৌড়ে এগিয়ে যারা

২০২০-২১ মৌসুমের ব্যালন ডি অর পুরস্কারের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে আলোচনা। এবার কার হাতে উঠবে এই পুরস্কার মূলত সেটা নিয়েই আলোচনা। এবারের ব্যালন ডি অর জয়ের দৌড়ে রয়েছেন বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়। তবে সবচেয়ে বেশি যে নামটি উচ্চারিত হচ্ছে তা হচ্ছে লিওনেল মেসি।

অন্যদিকে, ব্যালন ডি অর জয়ের আলোচনাতেই নেই নেইমার জুনিয়র, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও কিলিয়ান এমবাপ্পে। মেসির সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী মানা হচ্ছে ইতালি ও চেলসির মিডফিল্ডার জর্জিনহো, ফ্রান্স ও চেলসির মিডফিল্ডার এনগালো কান্তে এবং পোল্যান্ড ও বায়ার্ন মিউনিখের স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডস্কিকে।

বিগত বছরগুলোর মতো এবারও ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ব্যক্তিগত পুরস্কারের জন্য খেলোয়াড় বাছাই বেশ কঠিন অবস্থার মধ্যেই রয়েছে। তবে ব্যালন ডি অর পাওয়ার তালিকায় বাকিদের চেয়ে খানিক এগিয়েই রয়েছেন মেসি।

ফুটবলের সবশেষ মৌসুমে মেসির অর্জনের শেষ নেই। এ আসরে তিনি স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে জিতেছেন কোপা দেল রে শিরোপা। ফাইনাল ম্যাচে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে জোড়া গোল করে ম্যাচসেরা হন তিনি।

এছাড়া গত আসরের লা লিগায় সবচেয়ে বেশিবার ম্যাচসেরার পুরস্কারও তার দখলে। বার্সার হয়ে ৩৮ ম্যাচের মধ্যে তিনি খেলেছেন ৩৫ ম্যাচ এবং ম্যাচসেরা হয়েছেন ২২ ম্যাচে। তিনি গোল করছেন ৩৮টি এবং গোলের জন্য এসিস্ট করছেন ১২টি।

তবে তাকে এগিয়ে রাখছে জাতীয় দলের হয়ে কোপার শিরোপা। ২০২১ সালের কোপা আমেরিকায় সর্বোচ্চ গোল এবং এসিস্ট করে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন মেসি। এবার মেসি জিতলে সপ্ত ব্যালন ডি অর উঠবে তার হাতে। এমনটা হলে আর্জেন্টাইন জাদুকরকে ধরা রোনালদোর জন্য অসম্ভব হয়ে যাবে।

মেসির সাথে দৌড়ে আছে পোলিশ তারকা লেভানডস্কি। জাতীয় দলের হয়ে কিছু না জিতলে পারলেও বায়র্নের হয়ে ডিএফবি পোকাল ও লিগ শিরোপা জিতেছেন তিনি। পাশাপাশি ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনি। বুন্দেসলিগাতেও সর্বোচ্চ গোল তার। গত বছরে একমাত্র তিনিই ৫০ গোল করতে পেরেছেন।

অন্যদিকে জর্জিনহো ইতালির হয়ে ইউরো এবং চেলসির হয়ে জিতেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। তবে গোটা মৌসুমে গোল মাত্র ১৪টি। যদিও এবারের উয়েফার সেরা পুরস্কার তার হাতে উঠেছে। অন্যদিকে ফ্রান্সের হয়ে খালি হাতে ফেরা কান্তে জিতেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। তবে পারফর্ম বিচারে জর্জিনহোর চেয়ে তিনি পিছিয়েই থাকবেন।

আগামী ২৯ নভেম্বর জাকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ঘোষণা করা হবে এবারের ব্যালন ডি অর জয়ীর নাম। গত মৌসুমের পারফরম্যান্স বিবেচনায় অন্যদের চেয়ে এগিয়েই রয়েছেন মেসি। সবকিছু ঠিক থাকলে তার হাতেই হয়তো উঠবে সপ্তম ব্যালন ডি অর পুরস্কার।