করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।  

বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না...রাজিউন) তিনি। এ তথ্য জানিয়েছেন বাংলা একাডেমির সচিব এ. এইচ এম লোকমান।

বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানের বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। তিনি স্বাধীনতা পদক পদক ও একুশে পদকে ভূষিত।

একুশে পদকপ্রাপ্ত লেখক, অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান একাধারে ছিলেন লোক সংস্কৃতি ও পল্লীসাহিত্য গবেষক। তাঁর উল্লেখযোগ্য কাজ, বাংলাদেশের লোকজ সংস্কৃতি গ্রন্থমালা শিরোনামে ৬৪ খণ্ডে ৬৪ জেলার লোকজ সংস্কৃতির সংগ্রহশালা সম্পাদনা এবং ১১৪ খণ্ডে বাংলাদেশের ফোকলোর সংগ্রহমালা সম্পাদনা।

অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেন। এবং ১৯৬৪ সালে মুন্সিগঞ্জ হরগঙ্গা কলেজের বাংলা বিভাগে প্রভাষক হিসাবে যোগদান করেন। একই বছর তিনি জগন্নাথ কলেজে (বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) সহকারী অধ্যাপক হিসাবে যোগদান করেন।

২০০৯ সালে ২৪ মে তিনি বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হন। তার পদের মেয়াদ তিনবার বাড়ানো হয়, শেষ হয় ২০১৮ সালে। অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এর আগে দেশবরেণ্য কয়েকজন শিক্ষাবিদ মারা গেছেন।  তাদের মধ্যে রয়েছেন- অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, অধ্যাপক জামিলুর রেজা প্রমুখ।