সকালে যা যা খাবেন

বিজ্ঞানীরা বলেন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সকালের খাবার। কারণ সারারাত মানুষ খালি পেটে থাকে। তাই সকালে অবশ্যই পুষ্টিকর খাবারের প্রয়োজন। তাই সকালে ঘুম থেকে উঠেই এমন কিছু খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে যা আমাদের সারাদিন সুস্থ রাখার পাশাপাশি চাঙ্গাও রাখবে। তবে এমন খাবার থেকে বিরত থাকবেন যা আপনার শরীরকে সারাদিনের জন্য দুর্বল করে ফেলে। আসুন জেনে নেই সকালে কী খাবেন।


সকালে যা খাবেন


ভেজানো কাঠবাদাম


ভিটামিন ও খনিজে ভরা কাঠবাদাম। পানিতে ভেজালে পুষ্টিগুণ বেড়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকার পর ৫-১০টি কাঠবাদাম খাওয়া যায়। সকালে এটি পুষ্টি জোগানোর পাশাপাশি সারা দিন রুচি বাড়ায়।


মধু


আপনার মন ও শরীর সতেজ করে তুলতে সহায়তা করে। খাদ্য পরিপাক প্রক্রিয়াও শক্তিশালী করে। মস্তিষ্কের কাজ করে ত্বরান্বিত।


ওটমিল 


পাকস্থলীর চারপাশে একটি সুরক্ষা দেয়াল তুলে দেয়। এতে করে হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড পাকস্থলীর দেয়ালের কোনো ক্ষতি করতে পারে না। এছাড়া এতে দ্রবণীয় ফাইবার থাকার ফলে কোলেস্টেরলের মাত্রাও কমিয়ে রাখে।


খেজুর


শরীরে দ্রুত শক্তি জোগাতে পারে খেজুর। দিনের শুরুতে খেজুর খেতে পারেন। খেজুরে প্রচুর দ্রবণীয় আঁশ থাকে, যা হজম প্রক্রিয়ার জন্য ভালো। কোষ্ঠকাঠিন্য ও পেটের সমস্যা দূর করতে পারে খেজুর। খেজুর হৃৎপিণ্ডের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। রক্তপ্রবাহে গতি সঞ্চার করে।


ভিটামিন ই


২ টেবিল চামচ গমে ১৫ শতাংশ ভিটামিন ‘ই’ এবং ১০ শতাংশ ফলিক অ্যাসিড থাকে। এছাড়া হজম প্রক্রিয়ার কাজটি সহজ করে তোলে।


ডিম


সকালের নাশতায় ডিম প্রতিদিনের পর্যাপ্ত ক্যালরি গ্রহণ নিশ্চিত করে।


আমলকীর জুস


সকালে খালি পেটে আমলকীর জুস খেতে পারেন। তবে এই জুস খাওয়ার পর ৪৫ মিনিট পর্যন্ত কফি বা চা না খাওয়া ভালো। আমলকীতে প্রচুর ভিটামিন সি থাকে, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আয়ুর্বেদশাস্ত্রে বলা হয়, নিয়মিত আমলকী খেলে জীবনের দৈর্ঘ্য বাড়ে।