বাংলালিংক এসডিজি হ্যাকাথনের নিবন্ধন শুরু

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিভিন্ন উদ্ভাবনী সমস্যার সমাধান করতে রাজধানীতে তৃতীয়বারের মতো ‘এসডিজি হ্যাকাথন-কোড ফর এ কজ’-এর রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া শুরু করেছে দেশের অন্যতম ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক।


বাংলালিংকের অ্যাপ স্টোর অ্যাপলিংকের সাথে সম্মিলিতভাবে আয়োজিত হচ্ছে এই ২৪ ঘন্টাব্যাপী হ্যাকাথন। এসডিজি, কর্পোরেট, বিনোদন ও গেমিংয়ের মতো বিষয়ে ডিজিটাল সমাধান প্রদান করতে কোডার, ডিজাইনার, অ্যাপ ডেভেলপার ও সমস্যা সমাধানে আগ্রহীদেরকে এই হ্যাকাথনে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। এতে বিজয়ী দল অ্যাপলিংক-এ নিজেদের অ্যাপ উন্মুক্ত করার সুযোগ পাবে।


হ্যাকাথনে অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী প্রার্থীদের এই ঠিকানায় ভিজিট করে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে হবে। রেজিস্ট্রেশনের শেষ দিন ১৫ জুলাই।


রেজিস্ট্রেশন করা দলগুলোর মধ্যে থেকে থেকে ১৫টি দলকে অভিজ্ঞ মেন্টররা নির্বাচিত করবেন। এই দলগুলিকে নিয়ে শুরু হবে ২৪ ঘন্টাব্যাপী হ্যাকাথন। অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট নিয়ে প্রশিক্ষণ নেওয়ার পাশাপাশি অ্যাপলিংক-এর জন্য অভিনব ডিজিটাল সমাধান বের করবে প্রতিযোগীরা। অ্যাপলিংক সম্পর্কে জানতে ভিজিট করতে হবে অ্যাপলিংকের এই ঠিকানায়


২৪ ঘন্টার এই হ্যাকাথনে প্রোটোটাইপ বা প্রাথমিক সমাধান প্রদর্শনের ভিত্তিতে তিনটি দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে। বিজয়ী তিন দল পুরস্কার হিসেবে বাংলালিংক-এর সাথে অংশীদারীত্বের ভিত্তিতে অ্যাপলিংক-এ নিজেদের অ্যাপকে উন্মুক্ত করে উপার্জনের সুযোগ রয়েছে। এছাড়াও তাদের জন্য থাকছে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের সাথে নেটওয়ার্কিংয়ের সুযোগ ও অন্যান্য উপহার।


বাংলালিংক-এর চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান বলেন, একটি অগ্রগামী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলালিংক নিজস্ব অ্যাপ স্টোর ‘অ্যাপলিংক’ চালু করেছে স্থানীয় ডেভেলপারদের সহযোগিতা করার জন্য। মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন উদ্ভাবনী সমাধান পেতে পারি। এই প্রক্রিয়ার অংশ হতে চায় অ্যাপলিংক। আমরা আশা করি, এসডিজি হ্যাকাথনের তৃতীয় আয়োজনে দেশের প্রতিভাবান তরুণরা আমাদের দ্রুত গতির ফোরজি ইন্টারনেট ও বিভিন্ন টেকনিক্যাল টুলের সহায়তায় নতুন পরিকল্পনা নিয়ে হাজির হবে।


তিনি আরও বলেন, ভবিষ্যতে দেশের প্রযুক্তি খাতে টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করা জন্য বাংলালিংক মেধাবী তরুণদেরকে সহযোগিতা করে যাবে।