অফিসে বা বাড়িতে শরীরের যত্নে কাজের ফাঁকে যা খাবেন

সুস্থ থাকতে সবুজ শাকসব্জি ও ফলের বিকল্প নেই। তাই অফিসের টিফিনে বাইরে থেকে মুখরোচক ভাজাভুজি কিছু না আনিয়ে বরং একটা বা দুটো মরসুমি ফল খান। অল্প সময় বার করে অল্প তেল আর সব্জি দিয়ে বানিয়ে আনতে পারেন কোনও স্বাস্থ্যকর পদ।


বাড়িতে কিংবা অফিসে দীর্ঘ সময় কাজ করতে করতে ক্ষুধা লেগে লাগাটা স্বাভাবিক। আবার কখনও বা ভারি খাবার খাওয়া মাঝে হালকা ধরনের কিছু নাশতা করতে ইচ্ছে হয়। তখন অনেকেই বিভিন্ন ধরনের অস্বাস্থ্যকর খাবার খান। এতে শরীর খারাপ হতে পারে। বরং এই সময়ে বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া যেতে পারে। এতে ক্ষুধাও মিটবে আবার স্বাস্থ্যও ভালো থাকবে।


কাজের ফাঁকে স্বাস্থ্যকর কোন ধরনের স্ন্যাকস খাবেন?


১. হাতের কাছে রাখতে পারেন ড্রাই ফ্রুটস। আখরোট, কাঠবাদামের মতো কিছু শুকনো খাবার কিনে রাখতে পারেন। পাশপাশি খেজুর, কিশমিশ বা পেস্তা বাদামও রাখতে পারেন। এসব খাবার খেলে ক্ষুধা মিটবে,শরীরও ভালো থাকবে।


২. কাজের ফাঁকে সিদ্ধ ডিম খেতে পারেন। অফিসে যাওয়ার সময় বাটিতে করে নিয়ে যান সিদ্ধ ডিম। বাড়িতেও কাজের ফাঁকে সিদ্ধ ডিম খেতে পারেন।


৩. সঙ্গে কিছু ফল রাখতে পারেন। কলা, পাকা পেঁপে, শসা, আপেল খেতে পারেন কাজের ফাঁকে।


৪. বাড়িতে টক দই রাখতে পারেন । ক্ষুধা লাগলে ফ্রিজ থেকে বের করে খেতে পারেন।


৫. কাজের ফাঁকে খেতে পারেন উচ্চ প্রোটিন, আঁশ, কয়েকটি ভিটামিন ও খনিজসমৃদ্ধ মটর ভাজা। আধা কাপ মটরে আছে ৫ গ্রাম আঁশ, ১০ গ্রাম প্রোটিন।


৬. খেতে পারেন শুকনা ফল ও বাদাম কিশমিশ ও দু'একটা কাজুবাদাম। বাদাম শরীরকে নানাভাবে সহায়তা করে এবং ওজন কমাতেও সাহায্য করে। কাঠবাদাম, কাজুবাদাম, কিশমিশ, আখরোট এবং ডুমুর ইত্যাদি নিয়মিত খাওয়া ভালো।


৭. খেতে পারেন ডার্ক চকোলেট। এটি চর্বিযুক্ত দুধ ও কোকোয়াসমৃদ্ধ। এই চকোলেট খাওয়া হলে তাৎক্ষণিকভাবে তা মন ভালো করে দেয়।


ভারী খাবার কেমন হতে পারে?


ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাদা ভাত খান না অনেকেই। কেউ কেউ আবার এড়িয়ে চলেন রুটিও। কিন্তু ভিতর থেকে সুস্থ থাকতে ভাত, রুটির জুড়ি মেলা ভার। পরিমাণে অল্প হোক, কিন্তু রোজের খাবারে ভাত অথবা রুটি যেন অবশ্যই থাকে।


স্বাস্থ্যকর কিছু জলখাবার


মাঝেমাঝে মুখ চালাতে বা একটানা কাজের পর সন্ধের মুখে হঠাৎ পাওয়া খিদে মেটাতে চপ, শিঙাড়া, পিৎজা, বার্গারের বদলে ভরসা রাখতে পারেন বাদাম, স্মুদি, গ্র্যানোলা, ড্রাই ফ্রুটস, প্রোটিন বারের মতো স্বাস্থ্যকর কিছু খাবারের উপর।