গোপালগঞ্জে ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত ৪

গোপালগঞ্জে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে একটি বাসের ধাক্কা দেয়ার ঘটনায় চার জন নিহত ও ১২ জন আহত হয়েছেন। বাসটি ঢাকা থেকে পিরোজপুরের নাজিরপুরে যাচ্ছিল।

শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত ৩টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার শোনাশুর নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- গোপালগঞ্জ পুলিশ লাইন্সে কর্মরত সুবেদার আব্দুর রশিদ (৪৫), পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার রাজলক্ষ্মী গ্রামের নারায়ণ হাওলাদারের ছেলে বিজন হাওলাদার (২৩), একই উপজেলার পাতিলাখালী গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে রাসেল (২২) ও ছোট আমতলী গ্রামের দশরত মণ্ডলের ছেলে কমল মণ্ডল (২৪)।

ভাঙ্গা হাইাওয়ে থানা পুলিশের ওসি মো. আতাউর রহমান জানান, চাকা পাংচার হয়ে রড বোঝাই একটি ট্রাক সোনাশুরে হাইওয়ের পাশে দাঁড়িয়ে ছিল। ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পিরোজপুরগামী ইমাদ পরিবহনের একটি নৈশ কোচ ট্রাকটির পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের তিন যাত্রী নিহত ও অন্তত ১৫ জন আহত হন। পরে গোপালগঞ্জ পুলিশ লাইন্সে কর্মরত সুবেদার আব্দুর রশিদ (৪৫) নিহত হন।

তিনি আরও জানান, হাইওয়ে থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও গ্রামবাসী হতাহতদের উদ্ধার করে। আহত ১৫ জনকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এদের মধ্যে আশঙ্কাকাজনক অবস্থায় দুইজনকে খুলনা পাঠানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মোঃ জানে আলম বলেন, শুক্রবার রাত ৩টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ইমাদ পরিবহনের পিরোজপুরের নাজরপুরগামী একটি নৈশ কোচ ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে থাকা পণ্যবাহী ট্রাকের পেছনে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের চার যাত্রী নিহত ও ১২ যাত্রী আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর।

তিনি আরও বলেন, গুরুতর আহতদের মধ্যে একজনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।