নৌ ধর্মঘটের ডাক, রাত ১২টা থেকে ছাড়বে না লঞ্চ

নিয়োগপত্র ও খাবার ভাতাসহ দেওয়াসহ ১১ দফা দাবিতে নৌ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন শ্রমিকরা।

শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে ধর্মঘট শুরুর ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন।

নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাহ আলম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ১১ দফা দাবি আদায়ে আন্দোলন করে আসছি। লঞ্চ মালিকপক্ষ শুধু আমাদের আশ্বাস দিয়েছে, কিন্তু বাস্তবায়ন করেনি‌। গত বুধবারও সরকারের প্রতিনিধির সঙ্গে বসেছিলাম, কিন্তু আবারও আশ্বাস। তাই শ্রমিকরা অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য ধর্মঘটে যাওয়ার পক্ষে মতামত দেওয়ায় আমরা ধর্মঘটে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমরা আন্দোলন করেছিলাম, ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলাম। মালিকপক্ষ বলেছিল, আমাদের দাবিদাওয়া পূরণ করে দেবে। কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনো দাবিদাওয়া পূরণ করেনি।

১১ দফা দাবি হলো

নদী খনন, পাইপ লাইনের বদলে নৌযানে জ্বালানি তেল সরবরাহ, মাস্টার/ড্রাইভারশিপ পরীক্ষায় দুর্নীতি ও  সনদ উত্তোলনে হয়রানি বন্ধ করা, মার্চেন্ট শিপের অনভিজ্ঞ সনদধারীদের অভ্যান্তরীণ নৌ-পথে নিয়োগ বন্ধ করা, শ্রমিকদের জন্য ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন, ওভারলোড নিষিদ্ধ করা, পর্যাপ্ত মুরিং বয়ার ব্যবস্থা করা, নৌ শ্রমিকদের ছুটি, বিশ্রামাগার ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।

গত মঙ্গলবার ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছিল। তবে দাবি পূরণের আশ্বাসে বুধবার ধর্মঘট তুলে নেয় শ্রমিকরা। এরপর আজ আবার ধর্মঘটের ডাক এল।

তারা ধর্মঘটে গেলে রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের ৪৩টি নৌপথে নৌযান চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বিপাকে পড়বে ব্যবসায়ীরাও। কারণ ওই অঞ্চলের বেশিরভাগ ব্যবসায়ী নৌযান দিয়েই মালামাল আনা নেওয়া করে।