ফের কমেছে এলপিজি গ্যাসের দাম

এলপিজির (লিকুইড পেট্রোলিয়াম গ্যাস) দাম আরও কমে গেছে। বেসরকারি পর্যায়ে এলপিজির দাম প্রতিকেজি ৭০ টাকা ১৭ পয়সা ধরে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম মূসকসহ ৮৪২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে; যা আগামী ১ জুন থেকে কার্যকর হবে।

তবে সরকারি পর্যায়ে সাড়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম আগের মতোই ৫৯১ টাকা থাকবে।

সোমবার (৩১ মে) অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজির তৃতীয়বারের মতো দামের এই আদেশ দেয় কমিশন। এ সময় চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল, কমিশনের সদস্য মোহাম্মদ আবু ফারুক, মকবুল-ই এলাহী, বজলুর রহমান, কামরুজ্জামান, সচিব রুবিনা ফেরদৌসীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এর বাইরে ৫.৫, ১২.৫, ১৫, ১৬, ১৮, ২০, ২৫, ৩০, ৩৩, ৩৫ ও ৪৫ কেজি এলপিজির দামও বিইআরসি আদেশে পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। যা কমিশনের ওয়েবসাইটে গেলে পাওয়া যাবে।

এদিকে আবাসিক এ শিল্পে কেন্দ্রীয়ভাবে এলপিজির ব্যবহার শুরু হয়েছে। নতুন পদ্ধতিতে একসঙ্গে বাসা বা কারখানার নিচে বা পাশে বড় সিলিন্ডার থেকে এলপি গ্যাস ব্যবহার করা হচ্ছে। এই সিলিন্ডার থেকে পাইপলাইনের মাধ্যমে বাসায় বাসায় বা কারখানায় সরবরাহ করা হচ্ছে গ্যাস। এটির দামও কমিশন পুনর্নির্ধারণ করেছে।

এই রেটিকুলেটেড সিস্টেমে সরবরাহ করা এলপিজির দাম ভোক্তা পর্যায়ে মূসক ছাড়া প্রতিকেজি ৬৩ টাকা ৪৭ পয়সা এবং মূসকসহ ৬৭ টাকা ৮৭ পয়সা অথবা লিটার হিসেবে প্রতি লিটার মূসক ছাড়া ০ দশমিক ১৪১০ টাকা এবং মূসকসহ প্রতি লিটার ০ দশমিক ১৫০৮ টাকা পুনর্নির্ধারণ করেছে কমিশন।

কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘তিনটি বিষয়কে সামনে রেখে আমরা এলপিজির দাম পুনর্নির্ধারণ করে থাকি। এক. সৌদি সিপির পরিবর্তন।  দুই. এক্সচেঞ্জ রেট এবং সিপির পরিবর্তনের কারণে ভ্যাটের পরিবর্তন।’

তিনি জানান, জুন মাসের জন্য সৌদি আরামকো কর্তৃক প্রোপেন ও বিউটেনের ঘোষিত সৌদি সিপি যথাক্রমে প্রতি মেট্রিক টন ৪৯৫ ডলার এবং ৪৭৫ ডলার অনুযায়ী প্রোপেন ও বিউটেনের মিশ্রণ অনুপাত ৩৫:৬৫ বিবেচনায় প্রোপেন ও বিউটেনের গড় সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন ৪৮২ ডলার বিবেচনা করে এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।