আওয়ামী লীগ দেউলিয়া হয়ে গেছে: ফখরুল

আওয়ামী লীগ সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।


বুধবার (২৩ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত এক সেমিনারে এ মন্তব্য করেন তিনি।


'দেউলিয়াত্ব ঘোচাতে দুর্ভিক্ষের নাটক? দেশ কোন পথে’ শীর্ষক এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।


মানুষের দুঃখ কষ্ট না দেখে আওয়ামী লীগ নেতারা মালয়েশিয়া, কানাডা ও সিঙ্গাপুরের রঙিন জীবন দেখছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে। দলটি অনেক পুরোনো রাজনৈতিক দল। আর তাদের জনভীতি আছে। কিন্তু ক্ষমতায় থাকার লালসায় তারা এখন দেউলিয়া হয়ে গেছে। তারা যখনই ক্ষমতায় আসে তখনই দুর্ভিক্ষ হয়। আর এই দলের যারা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে থাকে তাদের দুর্নীতি ও লুটপাট দুর্ভিক্ষের অন্যতম কারণ।


১০ ডিসেম্বর সমাবেশ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, নয়াপল্টনে সমাবেশ করার কথা বলা হয়েছে। তারা (পুলিশ) এখনো সমাবেশের স্থান নির্ধারণ করে দেয়নি। ডিএমপির প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, কোনো ঝামেলা ছাড়া স্থানের অনুমতি দেওয়ার। কারণ বিএনপি নিয়ম মেনে সমাবেশের আবেদন করেছে।


বিধবা ভাতা বা দুস্থ ভাতার ১০ থেকে ২০ শতাংশ কেটে নেয় আওয়ামী লীগ নেতারা অভিযোগ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ জাতির জন্য বোঝা হয়ে গেছে। তাদের সরাতে না পারলে সবাই ডুবে যাবো। দুর্বার আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। কারণ আওয়ামী লীগ সুপরিকল্পিতভাবে দেশের অর্জন নষ্ট করছে এবং তারা দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে। এমন কোন খাত নেই যেখানে দুর্নীতি হয় না।


বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে নতুন করে গায়েবি মামলা শুরু করেছে অভিযোগ করে ফখরুল বলেন, সরকার পুরোনো নাটক শুরু করেছে। যাতে বিএনপি মামলা নিয়ে ব্যস্ত থাকে। আর সরকার তার কাজ করে যেতে পারে। কারণ সরকার পতনের আন্দোলন ভিন্নখাতে নিতেই আগুন সন্ত্রাস আর জঙ্গি নাটকের ধোঁয়া তুলছে তারা। দেশে জঙ্গি ছিনতাই নাটক তৈরি করা হচ্ছে, উদ্দেশ্য সরকার জনগণের মূল দাবি ভিন্নখাতে নিতে চায়।


নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।