সাকিবের দুর্দিন চলছেই!

সিপিএলে দারুণ শুরু হয়েছিল সাকিব আল হাসানের। প্রথম তিন ম্যাচেই দলের জয়ে রাখেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। তবে হঠাৎ চিত্র পাল্টে যায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে। ওইদিন বল হাতে বাজে সময় কাটানোর পর ব্যাট হাতেও ব্যর্থ হন। এরপর দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচেও ব্যাটে আশা জাগিয়ে তিনি ব্যর্থ।

টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের মুখোমুখি হয় সাকিবের দল। দল ১২ রানের ব্যবধানে জিতে ফাইনালে পৌঁছে গেলেও, সাকিব সাফল্য পাননি কোনো।

আগে ব্যাট করে দলের ওপেনার জনসন চার্লসের রক্ষণাত্মক ব্যাটিংয়ে স্লথ হয়ে আসা রানের চাকা দ্রুত ঘোরানোর চেষ্টায় ১টি করে চার ও ছক্কা হাঁকান বাঁহাতি অলরাউন্ডার সাকিব। কিন্তু টিকতে পারেননি বেশিক্ষণ। ইনিংসের নবম ওভারে বোলারের হাতে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১২ বলে ১৮ রান করেন সাকিব।

পরে বোলিংয়ে নেমে ইনিংসের প্রথম ওভারেই সুনিল নারিনের কাছে ৪টি চার হজম করেন সাকিব, খরচ করেন ১৬টি রান। ফলে সাকিবকে আর আক্রমণেই রাখেননি বার্বাডোজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। পরে ম্যাচের পরিস্থিতি যখন বার্বাডোজের নিয়ন্ত্রণে আসার পথে তখন ১৩তম ওভারে আক্রমণে এসে আবার ১১ রান খরচ করেন সাকিব। এরপর আর তাকে বলই দেয়া হয়নি।

এর আগে প্রথম কোয়ালিফায়ারে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের কাছে ৩০ রানে হেরে গিয়েছিল সাকিবের বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস। সে ম্যাচে বল হাতে ৪ ওভারে ৪৬ রান খরচ করার পর ব্যাটিংয়ে নেমে আউট হয়ে যান মাত্র ৫ রান করে।

মানে পরপর দুই ম্যাচেই পুরোপুরি ব্য্যর্থ সাকিব। এমন ঘটনা সাকিবের জন্য খুবই অস্বাভাবিক। শনিবার রাতে ফাইনালে গায়ানার মুখোমুখি হবে বার্বাডোজ। ওই ম্যাচে সাকিব জ্বলে উঠবেন এমনটাই আশা তার ভক্তদের।