সতীর্থ ক্রিকেটারকে পিটিয়ে নিষিদ্ধ শাহাদাত

জাতীয় ক্রিকেট লিগের চলমান খেলায় সতীর্থ আরাফাত সানি জুনিয়রকে পেটানোয় ম্যাচ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বাংলাদেশের পেসার শাহাদাত হোসেন রাজীবকে। ৩৩ বছর বয়সী এই পেসার আরও কড়া শাস্তির সম্মুখীন হতে পারেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এক কর্মকর্তা বলেন, লেভেল-৪ এর ধারা অনুযায়ী, এমন ঘটনার পর দোষী ক্রিকেটারকে এক বছরের জন্য সবরকমের ম্যাচ থেকে নিষিদ্ধ করা হয়। একইসঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জাতীয় লিগের ষষ্ঠ এবং শেষ রাউন্ডে এই ঘটনা ঘটান শাহাদাত। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ঢাকা বিভাগ এবং খুলনা বিভাগের ম্যাচের তৃতীয় দিন এই কাণ্ড ঘটে।

ম্যাচের মাঝে আরাফাত সানি জুনিয়রকে বলের এক পিঠ ঘষতে বলেছিলেন শাহাদাত। কিন্তু কাজটি সঠিকভাবে করতে না পারার কথা জানান সানি। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন ঢাকা বিভাগের এই ফাস্ট বোলার।

মাঠেই সানিকে চড়-থাপ্পর দেয়া শুরু করেন তিনি। ঘটনাটি সবার নজরে পড়ে। তাৎক্ষণিকভাবে বিসিবির কাছে শাহাদাতের বিরুদ্ধে রিপোর্ট করা হয়। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে আপাতত চলমান ম্যাচ থেকে নাম কাটা পড়েছে শাহাদাতের।

শাহাদাত বলেন, এনসিএলের চলমান ম্যাচটিতে আমি খেলছি না। আমাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আমি জানি না সামনে কি হবে। এটা সত্যি যে আমি মেজাজ হারিয়ে ফেলেছিলাম। আর সেও ভালো ব্যবহার করেনি। বল ঘষা নিয়ে সে খুব বাজেভাবে মন্তব্য করে।

শাহাদাতের এই ঘটনাটি তদন্ত করবে ম্যাচ রেফারি। আইনের ধারা অনুযায়ী কঠোর শাস্তি পেতে পারেন এই ফাস্ট বোলার।