এ বছরের টি-২০ বিশ্বকাপ হচ্ছে না!

আগামী ১৮অক্টোবর-১৫ নভেম্বর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা টি-২০ বিশ্বকাপ। কিন্তু করোনার জেরে যথাসময়ে টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে ঘোর সংশয়। যা পরিস্থিতি তাতে বিশ্বকাপ পিছিয়ে যেতে পারে ২০২২ অবধি।

আগামী ২৮মে আইসিসি’র বোর্ড মিটিং’য়ে এই বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হতে পারে। সম্ভাবনা তেমনই।

আইসিসি’র এক প্রভাবশালী বোর্ড সদস্যে পিটিআই’কে জানিয়েছে, ‘ওই সভায় আলোচনার বিষয় হিসেবে আইসিসি ইভেন্ট কমিটি টি-২০ বিশ্বকাপ ইয়োজনের তিনটি দিক তুলে ধরবে। প্রথমটা অবশ্যই মাঠে দর্শক প্রবেশে অনুমতি বজায় রেখে নির্ধারিত সূচি মেনে বিশ্বকাপ আয়োজন করা। সেক্ষেত্রে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে ক্রিকেটারদের ১৪দিনের কোয়ারেন্টাইন আবশ্যক। বিকল্প হিসেবে দর্শকহীন স্টেডিয়ামে খেলার বিষয়টিও ভাবা হয়েছে। আর সর্বশেষ বিকল্প হিসেবে টুর্নামেন্ট ২০২২ অবধি পিছিয়ে দেওয়ার পথও খোলা রাখা হয়েছে।’

বোর্ড মিটিং’য়ে চেয়ারম্যান হিসেবে শশাঙ্ক মনোহরের মেয়াদকাল দু’মাস বর্ধিত করার বিষয়টিও আলোচনায় রাখা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বোর্ডের ওই সদস্যের কথায়, ‘টি-২০ বিশ্বকাপ পিছিয়ে গেলে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া খুব একটা খুশি হবে না। কিন্তু দিনের শেষে আইসিসি’কে তাঁদের বাকি সদস্য দেশগুলির কথাও মাথায় রাখতে হবে। যদি সদস্য দেশগুলো মনে করে বিশ্বকাপের পরিবর্তে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ এখন বেশি গুরুত্বপূর্ণ তাহলে সেটাকে অস্বীকার করা যাবে না।’

সবশেষে আগামী নভেম্বর-ডিসেম্বরে ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরকে সেদেশের ক্রিকেট বোর্ডের জন্য ভীষণই মহত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত করেন ওই বোর্ড সদস্য। তাঁর কথায়, অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ও বর্তমান ক্রিকেটাররা একজোটে ভারতের বিরুদ্ধে নির্ধারিত সূচি মেনেই সিরিজ খেলতে মুখিয়ে রয়েছে। আর্থিকভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের কাছে সিরিজটা লাইফলাইন হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।