বাবার ধর্ষণে একাধিকবার অন্তঃসত্ত্বা মেয়ে, গর্ভপাত করাত মা!

সন্তানের আশ্রয়স্থল হলে বাবা-মা। তবে তারাই যদি ভক্ষক হয়ে উঠে তাহলে আর সন্তানের কিছুই করার থাকে। আবার সে যদি মেয়ে হয় তাহলে পড়তে হয় আরও বড় সমস্যায়।

সম্প্রতি ভারতে একটি ধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ্যে আসতে গোটা দেশজুড়ে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে। কারণ ধর্ষক ছিল খোদ বাবা।

মেয়েটির বয়স যখন ছয় বছর, তখন থেকেই নিজের বাবার লালসার শিকার সে। এভাবেই কেটে গেছে ১৬ বছর। এর মধ্যে বাবার ধর্ষণের কারণে বারবার গর্ভবতী হয়ে পড়ে সে। প্রতিবারই পিল খাইয়ে গর্ভপাত করিয়ে দেয় মা। নিজের সঙ্গে ঘটে চলা এই নারকীয় অত্যাচারকে ভবিতব্য হিসেবেই মেনে নিয়েছিল মেয়েটি।

কিন্তু বাবা যখন এবার ছোট বোনের দিকে হাত বাড়ালো তখন আর চুপ করে থাকতে পারেনি সে। নিজেকে বাঁচাতে যা পারেনি, ছোট বোনকে বাঁচাকে তাই করলো ২২ বছরের মেয়েটি। বাবার পৈশাচিকতার বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ হয় সে। এরপর থেকে অভিযুক্ত ৪৪ বছরের ওই ব্যক্তি পলাতক রয়েছে। স্বামীর অপরাধে মদদ দেওয়ায় তার ৪২ বছরের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ভিকটিমের ছোট বোন জানায়, কিছুদিন ধরেই বাবা তাকে দফায় দফায় যৌন হয়রানি করছিল। কিন্তু প্রতিবারই দিদি তাকে বাঁচিয়ে দিত। ১৮ বছর ও ৮ বছরের দুই ভাই, বাড়ির ভাড়াটিয়া ও কয়েকজন আত্মীয় পুরো বিষয়টি জানলেও কেউ কখনও প্রতিবাদ করেনি।

স্থানীয় থানার এসএইচও (স্টেশন হাউস অফিসার) শচিন সিং জানান, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, সম্মতি ছাড়া গর্ভপাত ও ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ আনা হয়েছে।