ইরানে ভয়াবহ ভূমিকম্প, বাড়ছে মৃতের সংখ্যা

ইরানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশে শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। এতে এখন পর্যন্ত অন্তত সাতজন নিহত ও ৭০ জন আহতের খবর জানা গেছে।

রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৯। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের তথ্যের উদ্ধৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি এ কথা জানায়।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিসি) আশঙ্কা করছে এ ভূমিকম্পে একশ’ থেকে এক হাজার মানুষের প্রাণহানি হতে পারে।

ইরানের ভূমিকম্প কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, দেশটির পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের তাবরিজ শহর থেকে ১২০ কিলোমিটার দূরে ভূগর্ভের পাঁচ কিলোমিটার গভীরে ওই ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল। মাঝারি মাত্রার ওই ভূমিকম্পের পর আরও কয়েকবার মৃদু ভূকম্পন টের পাওয়া যায়।

একই কথা জানায় ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ইরনা। তারা জানায়, ভূমিকম্পটিতে তুলনামূলক বেশি কম্পন অনুভূত হয়। বেশকিছু শহরে এর প্রভাব পড়ে। রাতের অন্ধকারে আতঙ্কিত মানুষজন ঘরবাড়ি থেকে ছুটে বেরিয়ে আসে।

ভৌগোলিকভাবে ইরান দুটি বড় টেকটোনিক প্লেটের সংযোগস্থলের ওপর অবস্থিত। ফলে প্রায়ই এখানে ভূকম্পন হয়।  

গত কয়েক দশকে অনেকগুলো বড় ভূমিকম্পের মুখোমুখি হয়েছে ইরান। এর মধ্যে ২০০৩ সালে বাম শহরে ভয়াবহ এক ভূমিকম্পে অন্তত ৩১ হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এর আগ ১৯৯০ সালে উত্তর ইরানে ৭.৪ মাত্রার প্রাণঘাতী আরেক ভূমিকম্পে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ নিহত ও ৩ লাখ আহত হয়। সেবারে ৫ লাখ মানুষ ঘরবাড়ি হারায়। ডজনখানেক শহর ও প্রায় ২ হাজার গ্রাম ধ্বংসস্তূপে ভরে যায়।

এছাড়া ২০০৫ ও ২০১২ সালে আরও দুই ভূমিকম্পে যথক্রমে ৬ শ’ ও ৩ শ’ মানুষের প্রাণহানি হয়।