ভারতের মন্ত্রিসভায় পাশ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল

দীর্ঘদিনের বিতর্কের পর ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পাশ হয়ে গেল ‘সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল’ বা ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল’।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই বিলে সিলমোহর দিয়েছে। এদিন এই বিল সংসদে পেশ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে গিয়ে ভারতে শরণার্থী হওয়া অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দিতে এ বিলটি আনা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে দেশটির পার্লামেন্টে সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল (ক্যাব) নামের এ বিলটি গৃহীত হবে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ২০১৬ বিগত লোকসভায় সংসদের দুই কক্ষে পাস করা যায়নি। সংসদের একটি যৌথ কমিটি দ্বারা বিলটির তদন্ত হয়েছিল। তারপরে লোকসভায় পাস হলেও রাজ্যসভায় তা পাস করতে পারেনি মোদী সরকার।

বিশেষত অসমে-সহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে এই বিলের বিপক্ষে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়েছিল। তারপরও বিজেপির নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল, বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তানের নিপীড়িত হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি এবং খ্রিস্টানদের ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদানের জন্য নাগরিকত্ব আইন ১৯৫৫ সংশোধন করা হবে।

যদিও বিলে প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা মুসলিমদের বিষয়ে কোনও উল্লেখ করা হয়নি। ধর্মের ভিত্তিতে কেন ওই ভেদাভেদ, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই সিলেক্ট কমিটির বৈঠকে আপত্তি জানিয়েছেন অধিকাংশ বিরোধী দল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ যখন পার্লামেন্টে এ বিল উপস্থাপন করবেন, তখন বিজেপি-র সব এমপিকে উপস্থিত থাকতে দলের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে সোমবারই সংসদে দাঁড়িয়ে অমিত শাহ বলেছেন যে, অনুপ্রবেশকারীদের ভারতে থাকতে দেওয়া হবে না। সবাইকে বহিষ্কার করা হবে। সেই সঙ্গে অমিত শাহ এও জানিয়েছেন, ২০২৪ সালের মধ্যে গোটা দেশে জাতীয় পঞ্জিকরণ তথা ন্যাশনাল রেজিস্টার অফ সিটিজেনস বাস্তবায়িত হবে।