জমায়েত দেখলেই চলছে লাঠিপেটা

ভারতের বাংলাদেশ লাগোয়া রাজ্য বাংলায় চলছে লকডাউন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এই সিদ্ধান্ত। কিন্তু লক ডাউনকে উপেক্ষা করে ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসছেন অসংখ্য মানুষ। সেই সব মানুষদের ঘরে ফেরাতে তৎপর পুলিশ প্রশাসন।

গতকাল থেকে শুরু হয়েছে লকডাউন। তবে দ্বিতীয় দিনে শহরের বিভিন্ন জায়গায় দেখা গেল মানুষের জটলা। দোকানের সামনে ভিড় করছেন সাধারণ মানুষ। আর এতেই উদ্বেগ বাড়ছে প্রশাসনের।

শুধু কলকাতা নয় জেলায় জেলায় দেখা গিয়েছে একই ছবি। পুলিশ প্রশাসনের কাছে এখন বড় চ্যালেঞ্জ কিভাবে মানুষকে ঘরবন্দি রাখা যায়। আর বাইরে বেরিয়ে আসা মানুষদেরকে এদিন লাঠিপেটা করে ঘরে ঢোকাতে হলো হলো পুলিশকে।

অভিযোগ সোমবার সকালে রাজা বাজার এলাকায় বাজার রাজা বাজার এলাকায় বাজার এলাকায় শয়ে শয়ে মানুষ রাস্তায় নেমে আসেন। এছাড়া শহরের বেশ কয়েকটি এলাকায়ও দেখা গিয়েছে মানুষকে জমায়েত হতে।

প্রথমপ তাদেরকে বুঝিয়ে বলা হয়, না শোনায় লাঠিপেটা করে ঘরে ঢুকিয়ে দেয় পুলিশ।

এমন বার্তা আগেই দিয়েছিল কলকাতা পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা । লালবাজার সূত্রে খবর, সরকারি বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করায় সোমবারই ২৫৫ জনকে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশ।

সেখানে তিনি লেখেন, ‘অনুগ্রহ করে করোনা-সংক্রান্ত সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। নিতান্ত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বেরোবেন না। সরকারি বিধি লঙ্ঘন আইনত দণ্ডনীয়। আপৎকালীন প্রয়োজনে ১০০ ডায়াল করুন।’

সোমবার মধ্যরাতে কলকাতা পুলিশ কমিশনার ‌ফের ট্যুইট করে তিনি লেখেন, প্রশাসনের সঙ্গে সহযোগিতা করুন। বাড়িতে ‌থাকুন।আগামী দিনগুলিতেও পুলিশের অভিযান চলবে।