এবার বিড়ালের দেহে করোনা শনাক্ত

যুক্তরাষ্ট্রে প্রথমবারের মত গৃহপালিত প্রাণীর দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। নিউইয়র্কের দুটি বিড়ালের দেহে এই ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তবে মার্কিন চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, এখনই ভয় পাওয়ার কিছু নেই, কারণ গৃহপালিত প্রাণী থেকে ভাইরাসটি মানুষের দেহে ছড়াচ্ছে এমন কোন প্রমাণ নেই। 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বিশ্ব জুড়ে মহামারির আকার নেওয়া করোনাভাইরাসে প্রাণী আক্রান্ত হওয়ার অবশ্য নতুন নয়। গত মাসে নিউইয়র্কের ব্রুনক্স চিড়িয়াখানা পরিচালনা কর্তৃপক্ষ ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন সোসাইটি জানায়, তাদের চিড়িয়াখানার পাঁচটি বাঘ ও তিনটি সিংহ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এছাড়া হংকংয়ে এক মালিক করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর তার কুকুরও আক্রান্ত হয়। বিচ্ছিন্ন রাখার পর কুকুরটি ভাইরাস মুক্ত হলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে অবশ্য কুকুরটির মৃত্যু হয়। তবে মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট নয়। এছাড়া সেখানে আরও একটি জার্মান শেফার্ড কুকুর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সেটিকেও কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

নিউইয়র্কের বিড়াল দুটি কীভাবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, বাড়ি বা আশেপাশের আক্রান্ত মানুষের সংস্পর্শে আসার পর এগুলোর মধ্যে ভাইরাস সংক্রমিত হয়। যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) জানিয়েছে, বিড়াল দুটির শ্বাস-প্রশ্বাসে সামান্য সমস্যা রয়েছে। আশা করা হচ্ছে এগুলো সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ২৬ লাখ ছাড়িয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬ লাখ ২৭ হাজার ৬৩০ জন। বিশ্ববিদ্যালয়টির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারিতে এ পর্যন্ত বিশ্বের ১৮৫টি দেশ ও অঞ্চল আক্রান্ত হয়েছে। এরমধ্যে এক লাখ ৮৩ হাজার ৩৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ১১ হাজার ১৪৪ জন।