ভারতের বিতর্কিত ৩ কৃষি আইন প্রত্যাহার

বিতর্কিত সেই তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুধু তাই নয়, এতদিনের দুর্ভোগের কারণে দেশবাসীর কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি।

শুক্রবার (১৯ নভেশ্বর) জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে নরেন্দ্র মোদী বলেন, আমি দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আমাদের হয়তো তপস্যাতেই খামতি ছিল। তাই কৃষি আইন প্রত্যাহার করা হচ্ছে।

তিনি নলেন, এ মাসে শুরু হতে চলা সংসদ অধিবেশনে আইনগুলো প্রত্যাহার করা হবে। সবাইকে অনুরোধ করছি, আসুন, আন্দোলন ছেড়ে নতুন দিনের সূচনা করি। এবার আপনারা মাঠে ফিরে যান, পরিবারের কাছে যান।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ‘বিতর্কিত’ তিন কৃষি আইনে কী ছিল

ফারমার্স প্রোডিউস ট্রেড অ্যান্ড কমার্স (প্রোমোশন অ্যান্ড ফেসিলিটেশন) অ্যাক্ট, ২০২০, ফারমার্স (এমপাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড প্রটেকশন) এগ্রিমেন্ট অব প্রাইস অ্যাসিওরান্স অ্যান্ড ফার্ম সার্ভিসেস অ্যাক্ট, ২০২০, এসেনশিয়াল কমোডিটিজ (সংশোধিত) বা অত্যাবশ্যক পণ্য আইন । 

সরকারের দাবি ছিল, এই কৃষি আইনে বড় ব্যবসায়ীদের মনোপলি বন্ধ হবে।  কৃষকরা যেখানে খুশি এবং যাকে খুশি শস্য বিক্রি করতে পারবেন। কৃষকরা বাজারের সর্বোচ্চ মূল্য পাবেন। এই আইনে আন্তঃরাজ্য বাণিজ্যের ওপর জোর দেওয়া হয়। পরিবহণ খরচ কমানোর প্রস্তাবও করা হয়। সর্বোপরি উদ্দেশ্য ছিল— কৃষকদের কৃষি-বাণিজ্য সংস্থা এবং খুচরা পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত করা।

কৃষকদের অভিযোগ ছিল, এই আইন বাস্তবায়িত হলে সরকার ধীরে ধীরে ন্যূনতম সহায়তা মূল্যে বাজার থেকে ফসল কেনা বন্ধ করে দেবে। বাজার থেকে সরকারি নিয়ন্ত্রণ সরে যাবে। কৃষকদের পুঁজিপতিদের মুখের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। ব্যবসায়ীরা কৃষকদের ওপর আধিপত্য বিস্তার করবে।